ঢাকা, রবিবার, ২২শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২১শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি, দুপুর ১২:৫১
বাংলা বাংলা English English

পাঁচবিবিতে ভাবীর হাতে ৪ বছর বয়সী দেবর খুন”ভাবী আটক


জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে আপন ভাবী তার ৪ বছর বয়সী শিশু দেবর লাবিল হোসেন (৪) কে গলা টিপে নৃশংস ভাবে হত্যা করেছে।মঙ্গলবার সকালে উপজেলার মোহাম্মদেপুর ইউনিয়নের রশিদপুর সাতআনা গ্রামে এ নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে। এ ঘটনায় খুনি ভাবী রিমা খাতুন (১৮) কে আটক করেছে থানা পুলিশ।

গ্রামবাসী ও মোহাম্মদপুর ইউপি চেয়ারম্যান সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে উপজেলার রশিদপুর সাতআনা গ্রামের জহুর আলীর পুত্র মোঃ লাবিব হোসেন (৪) ঘুম থেকে উঠে খাওয়ার জন্য কান্নাকাটি শুরু করলে বাবা তাকে ১০টাকা দিয়ে দোকান থেকে কেক এনে খাওয়ায়। এরপর বাহিরে কাজে চলে যায়। এমন সময় পাশ্ববর্তী মেজবাহুলের স্ত্রী ভাবী রিমা খাতুন (১৮) পারিবারিকদ্বন্দ কলহের জেরধরে শিশু দেবর লাবিবকে তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায় এবং ভাত খাওয়ায় এরপর লাবিবকে গলা টিপে হত্যা করে খাটের উপর শুয়ে দিয়ে চাঁদর দিয়ে ঢেকে রাখে।

এ সংবাদ পেয়ে লাবিবের মা ঐ ঘরে গিয়ে ছেলেকে ডেকে নিয়ে আসতে গেলে, তাকে অজ্ঞান অবস্থায় পায়। তাৎক্ষনিকভাবে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা মহিপুর সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক লাবিবকে মৃত ঘোষনা করে।

এ ব্যাপারে আওলাই ইউপি চেয়ারম্যান এস.এম রবিউল আলম পিন্টু জানান, প্রেম করে বিয়ে হওয়া স্বামী ও শ্বাশুরির সাথে বনিবনা না থাকায় তাদের মধ্যে প্রায় ঝঁগড়া লেগেই থাকত। শিশু লাবিবকে ভাবী রিমা খাতুন ভাত খাওয়ানোর পর তাকে গলা টিপে হত্যা করেছে বলে তাৎক্ষণিকভাবে সে কথা সে স্বীকার করেছে। এই ঘটনায় থানা পুলিশ অভিযুক্ত ভাবী রিমা খাতুনকে আটক করে এবং শিশু লাবিবের মরেদেহ ময়না তদন্তের জন্য জয়পুরহাট মর্গে প্রেরণ করেছে।

পাঁচবিবি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব ঘটনা নিশ্চিত করে বলেন, রিমা তার শিশু দেবর লাবিবকে শ্বারোধ করে হত্যার বিষয়টি জানালে পুলিশ তাকে আটক করে। শিশু লাবিবের লাশটি ময়না তদন্তের জন্য জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পাঁচবিবি সার্কেল সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ইশতিয়াক আলম বলেন ঘটনার খবর পাওয়া মাত্র আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি।এবং এঘটনায় থানায় মামলার প্রস্ততি চলছে।

সব খবর