ঢাকা, রবিবার, ২২শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২১শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি, দুপুর ১:৫২
বাংলা বাংলা English English

রবিবার, ২২শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

খারকিভে ইউক্রেনীয়দের ‘বিজয়’


খারকিভ থেকে রুশ সৈন্যদের সরে যেতে বাধ্য করেছে ইউক্রেনীয় সৈন্যরা। যুক্তরাষ্ট্রের এক নির্ভরযোগ্য সূত্র বিবিসিকে জানিয়েছে, খারকিভ শহরে দৃশ্যত তারা (ইউক্রেনীয়রা) যুদ্ধে জিতেছে।

বিভিন্ন সংবাদ সংস্থার সংবাদেও বিষয়টির কিছু সত্যতা মিলেছে। এএফপিকে দেওয়া বিবৃতিতে ইউক্রেনীয় জেনারেল স্টাফ জানিয়েছেন, ‘শত্রুদের প্রধান টার্গেট এখন কীভাবে খারকিভ থেকে দ্রুত তাদের সৈন্যদের সরিয়ে নেওয়া যায়।’

এদিকে রয়টার্সের সাংবাদিকরা জানিয়েছেন, ইউক্রেনের উত্তর-পশ্চিম অঞ্চল থেকে দুই সপ্তাহ ধরে কোনো সাড়াশব্দ পাওয়া যাচ্ছে না।

রাশিয়ার গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, মস্কো শুক্রবার (১৩ মে) ডেরগাছি থেকে ১০ কিলোমিটার উত্তরে বোমাবর্ষণ করছে এবং অস্ত্র ডিপোতেও বোমা ফেলেছে।

খারকিভ দখল রাশিয়ার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। শহরটিতে ইতোমধ্যেই রুশরা ভয়াবহ বোমা হামলা চালিয়েছে এবং শত শত নিরস্ত্র নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে।

সীমান্তের কাছে হওয়ায় শহরটিতে একের পর এক হামলা চালানো হয়। রকেট ও গোলা হামলায় ভবনগুলোর ধ্বংসাবশেষ সাক্ষ্য দেয় ভয়াবহতার।

শিল্পখাতের জন্য প্রসিদ্ধ খারকিভ এখন ধ্বংসস্তূপের নগরী। শহর থেকে রুশ সেনারা চলে গেলেও রাশিয়ার সীমান্ত থেকে এখনো শহরের ভবনগুলোতে বোমা ও গোলা হামলা অব্যাহত রয়েছে। সুউচ্চ ভবনগুলো বোমার আঘাতে মুহূর্তেই ধ্বংসযজ্ঞে পরিণত হচ্ছে।

 

ফিলিপ গেরাসিম নামের একজন নাগরিক বলেন, একাধিক বোমা হামলার শিকার ভবনটি এখন বীভৎস অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে। রাশিয়ার সেনারা মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে শহরে অভিযান চালায়। সামরিক অভিযানের নামে তারা এখানে ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে। এটি একটি ছোট অংশ মাত্র, চারপাশে এমন অসংখ্য ভবন ক্ষত-বিক্ষত হয়ে গেছে। এর প্রতিশোধ অবশ্য ইউক্রেনীয় সেনারা নেবে এবং আশা করি দ্রুতই সবকিছুর অবসান হবে।

শহরের খলদনগরিস্কি এলাকার বাসিন্দা জুলিয়া। চোখের সামনেই বোমা পড়তে দেখেছেন খারকিভের সামরিক ইউনিটে। দেখেছেন লাশের সারি আর ধ্বংসযজ্ঞ। প্রতিবেশী দেশ এভাবে হামলা চালাবে তা কখনোই ভাবেননি তিনি।

তিনি বলেন, পেছনের ধ্বংসস্তূপটি আগে আমাদের সেনাবাহিনীর ইউনিট ছিল। রাশিয়ান সৈন্যরা এখানে বোমা নিক্ষেপ করে। এই ধ্বংসস্তূপে বাবা-ছেলে একসঙ্গে মারা গেছে। আমি জানি না, রাশিয়ান সৈন্যদের মায়েরা কীভাবে ঘুমায়। আমাদের মতো শান্তিপ্রিয় দেশের ওপর প্রতিবেশী দেশ বোমা হামলা করেছে, তা কখনো ভুলব না।

 

এখন পর্যন্ত খারকিভ শহরে বোমা হামলায় প্রায় ২ হাজার ১০০ ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে খারকিভ নগর প্রশাসন।

 

সব খবর