ঢাকা, বুধবার, ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২২শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ই জিলহজ, ১৪৪৩ হিজরি, রাত ৩:৩৯
বাংলা বাংলা English English

বুধবার, ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২২শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘প্রবাসীরা পদ্মা সেতুর গর্বিত অংশীদার’


বহুল প্রত্যাশিত ও কাঙ্ক্ষিত স্বপ্নের পদ্মা সেতু নির্মাণের ক্ষেত্রে প্রবাসী বাংলাদেশিদের গর্বিত অংশীদার বলে উল্লেখ করেছেন স্পেনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সরওয়ার মাহমুদ।

তিনি বলেছেন, প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্সে সমৃদ্ধ হচ্ছে বাংলাদেশের অর্থনীতি। বাঙালি জাতির গর্ব বহুদিনের প্রতীক্ষিত পদ্মা সেতু আগামী ২৫ জুন শুভ উদ্বোধন হতে যাচ্ছে। সম্পূর্ণ আমাদের নিজেদের অর্থে এ সেতু নির্মিত হয়েছে। প্রবাসী বাংলাদেশিরা যার গর্বিত অংশীদার।

পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে শুক্রবার (১০ জুন) স্পেনের বাংলাদেশ দূতাবাসের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে রাষ্ট্রদূতের বক্তব্য সংবলিত প্রায় ৪ মিনিটের একটি ভিডিও বার্তা পোস্ট করা হয়। সেখানে তিনি প্রবাসী বাংলাদেশি কমিউনিটি, রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংবাদিক সংগঠনসহ সবার উদ্দেশে এ অনুভূতি ব্যক্ত করেন তিনি।

ভিডিও বার্তায় রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সরওয়ার মাহমুদ তার ওপর অর্পিত দায়িত্বগুলো যথাযথভাবে পালনের জন্য তার পুরো টিম সচেষ্ট রয়েছে উল্লেখ করে বলেন, ইউরোপ থেকে বাংলাদেশে রেমিটেন্স প্রেরণে স্পেন অন্যতম একটি দেশ। ২০২০-২১ অর্থ বছরে ৫৩.৪৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার রেমিটেন্স স্পেন থেকে বাংলাদেশে প্রেরিত হয় এবং সোর্স ক্যান্টি হিসেবে স্পেন ২৩ তম স্থান অধিকার করে। এই অর্থ বছরে অর্থ্যাৎ ২০২১-২২ বছরে মে মাস পর্যন্ত প্রবাসী আয় প্রেরণের পরিমাণ ৫৭.৫৭ মিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় স্পেন প্রবাসীদের প্রেরিত রেমিটেন্স পরিমাণ প্রতিবছর বৃদ্ধি পাচ্ছে। এজন্য তিনি সব প্রবাসীদের আন্তরিক অভিনন্দন জানান।

বৈধভাবে দেশে রেমিটেন্স পাঠিয়ে দেশের অব্যাহত অগ্রযাত্রায় অংশ নেওয়ার আহবান জানিয়ে রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক রেমিটেন্স প্রেরণে আর্থিক প্রণোদনার কথা উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশে পাঠানো রেমিটেন্সের উপরে ২ দশমিক ৫ শতাংশ প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে; যা ব্যাংকিং চ্যানেলে বৈধভাবে পাঠানো ওই প্রণোদনা প্রযোজ্য হবে।

তিনি প্রবাসীদের বাংলাদেশে ব্যাংকিং চ্যানেলে বৈধভাবে পাঠানো ২ দশমিক ৫ শতাংশ প্রণোদনা গ্রহণ করার জন্য আহ্বান জানান। বাংলাদেশে বৈধভাবে রেমিটেন্স প্রেরণে যে কোনো সমস্যায় দূতাবাস কর্তৃক অব্যাহতভাবে সহযোগিতা দেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দেন।

দেশটিতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের রেমিটেন্স প্রবাহে উৎসাহ দিতে তিনি দূতাবাসের শ্রম কল্যাণ ইউংয়ের সহযোগিতায় রেমিটেন্স পুরস্কার প্রদানের ঘোষণা দেন। গত জুলাই ২০২১ থেকে জুন ২০২২ পর্যন্ত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে বাংলাদেশে সর্বাধিক রেমিটেন্স প্রেরণকারী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে চলতি বছর এ পুরস্কার দেওয়া হবে।

বাংলাদেশ দূতাবাস স্পেন সর্বদা প্রবাসীদের সেবাদানে অঙ্গীকারবদ্ধ উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, স্পেনে প্রায় ৫০ হাজার বাংলাদেশি রয়েছেন। তাদের সেবায় এরইমধ্যে আমরা দূতাবাসের কনস্যুলার সেবাকে সহজতর করেছি। অধিকতর সচ্ছতা প্রদান ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করে কার্ড ও ব্যাংক ট্রান্সফারের মাধ্যমে কনস্যুলার ফ্রি সরাসরি দূতাবাসের অ্যাকাউন্টে জমা নেওয়ার ব্যাবস্থা গ্রহণ করেছি। বার্সেলোনাসহ অন্যান্য শহরে প্রবাসীদের জন্য কনস্যুলার সেবা দিয়েছি। দূরবর্তী প্রবাসীদের জন্য ডাকযোগে সেবা সার্ভিস চালু হয়েছে। ফলে দূরের প্রবাসীরা দূতাবাসে না এসে সেবা নিতে পারছেন।

কনস্যুলার সেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে তিনি আরও উল্লেখ করেন, স্পেনে জন্ম নেওয়া শিশুদের জন্য জন্মনিবন্ধন প্রক্রিয়া অত্যন্ত সহজ করা হয়েছে। যে কেউ অনলাইনে আবেদন করে জন্মসনদ পেতে পারেন। পাসপোর্ট সংশোধন, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স ইত্যাদি প্রক্রিয়া সহজতর করার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছি এবং অচিরেই এ প্রক্রিয়াগুলো সহজতর হবে।

এ সময় তিনি প্রবাসীদের সুস্থ থাকা ও সুন্দর জীবন কামনা করেন।

সব খবর