ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১০ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি, রাত ৮:০৭
বাংলা বাংলা English English

বৃহস্পতিবার, ৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিআরটি প্রকল্পের কাজ আপাতত বন্ধ থাকবে: মেয়র আতিক


রাজধানীর বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের কাজ আপাতত বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম। মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) সকালে উত্তরার জসীম উদ্‌দীন মোড়ে দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

এ সময় মেয়র সাংবাদিকদের জানান, সর্বসাধারণের নিরাপত্তা বিবেচনায় প্রকল্প এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে সতর্ক করা হয় বিআরটি কর্তৃপক্ষকে। কিন্তু, তারা কোনো কর্ণপাত করেনি। নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত না করা পর্যন্ত প্রকল্প এলাকার কাজ বন্ধ থাকবে।

তিনি আরও বলেন, এ প্রকল্প কাজ পরিচালনায় ন্যূনতম নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেই। ফলে কিছুদিন পরপরই দুর্ঘটনা ঘটছে, জনদুর্ভোগ বাড়ছে। এভাবে উন্নয়ন কাজ চলতে দেয়া যাবে না। আগে নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

আতিকুল ইসলাম বলেন, ঢাকায় বিআরটি, মেট্রোরেলসহ অনেকগুলো প্রকল্পের কাজ চলমান। সব প্রকল্পের পরিচালকদের আগামী বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) নগর ভবনে ডাকা হবে। তারা নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করলেই কাজ শুরু করতে পারবে।

 

তিনি বলেন, সোমবার (১৫ আগস্ট) কাজের সময় কোনো ধরনের নোটিশ তারা দেয়নি। কোনো নিরাপত্তা ব্যবস্থা তারা নেননি।

বিআরটি প্রকল্পের ব্যবস্থাপনা পরিচালকও মেয়রের কথার সত্যতা স্বীকার করে দোষ চাপান ঠিকাদারি কোম্পানির ওপর।

এদিকে এ ঘটনায় গঠন করা তদন্ত কমিটি তাদের প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব নীলিমা আক্তার সড়ক পরিবহন বিভাগের সচিব এবিএম আমিন উল্লাহ নুরীর কাছে নির্ধারিত সময় সকাল ৮টার মধ্যে প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন। পরে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিবেদনটি তদন্ত কমিটির পক্ষ থেকে জমা দেয়া হবে।

এর আগে সোমবার (১৫ আগস্ট) বিকেলে দুর্ঘটনার পর রাতেই অতিরিক্ত সচিব নীলিমা আক্তারকে প্রধান করে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়। কমিটি গঠন হওয়ার পর রাতেই এলাকা পরিদর্শন করেন কমিটি প্রধান।

এদিকে আজ ভোর থেকেই রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গের সামনে স্বজনদের আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠেছে। ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হবে।

এর আগে সোমবার (১৫ আগস্ট) বিকেলে জসীম উদ্‌দীন মোড়ে আড়ংয়ের সামনে নির্মাণাধীন বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের ফ্লাইওভারের গার্ডার পড়ে একটি প্রাইভেটকারের পাঁচ আরোহী নিহত হন। এছাড়া দুই যাত্রীকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেয়া হয়।

জানা গেছে, বৌভাত খেয়ে প্রাইভেটকারে নবদম্পতিকে নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন স্বজনরা।

পথিমধ্যে উত্তরার জসীম উদ্‌দীন মোড় সংলগ্ন সড়কে বিআরটি প্রকল্পের গার্ডার পড়ে নিহত হন ৫ জন। প্রাইভেটকারে ৭ আরোহীর মধ্যে শুধু বেঁচে যান বর হৃদয় (২৬) ও নববধূ রিয়া মনি (২১)। শনিবার (১৩ আগস্ট) বিয়ে হয় তাদের।

প্রাইভেটকারে আরোহীদের মধ্যে ছিলেন হৃদয়ের বাবা রুবেল (৬০), হৃদয়ের শাশুড়ি ফাহিমা (৪০), রিয়া মনির খালা ঝরনা (২৮), ঝরনার দুই সন্তান জান্নাত (৬) ও জাকারিয়া (২)। ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় নিহত ফাহিমা আক্তার ও ঝরনা আক্তারের ভাই মো. আফরান মণ্ডল বাবু বাদী হয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করেছেন। মামলার বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মোহসীন।

মামলায় ক্রেনের চালক, প্রকল্পের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না গেজহুবা গ্রুপ করপোরেশন (সিজিজিসি) ও নিরাপত্তা নিশ্চিতে দায়িত্বপ্রাপ্তদের অভিযুক্ত করা হয়েছে। ব্যক্তি হিসেবে আসামি করা হয়েছে অজ্ঞাতদের।

 

সব খবর