ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১০ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি, সন্ধ্যা ৬:৫৩
বাংলা বাংলা English English

বৃহস্পতিবার, ৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উৎসব


আগামী ১৮ আগস্ট সারাদেশে পালিত হবে হিন্দুদের একটি বড় ধর্মীয় উৎসব শুভ জন্মাষ্টমী। এই উৎসবটি কৃষ্ণ জন্মাষ্টমী নামেও পরিচিত। হিন্দু ধর্মীয় উৎসবের এই দিনটি সরকারি ছুটির তালিকাভুক্ত।

হিন্দুধর্মে ভগবান বিষ্ণুর একটি বিশেষ রূপ হিসেবে মানা হয় শ্রীকৃষ্ণকে। ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের অষ্টমী তিথিতে পৃথিবীতে সাকার রূপে আবির্ভূত হন ভগবান শ্রীকৃষ্ণ। তাঁর আবির্ভূত হওয়ার এই দিনটিই কৃষ্ণ জন্মাষ্টমী নামে পরিচিত।

 

শ্রীকৃষ্ণ হলেন দেবকী এবং বাসুদেবের অষ্টম সন্তান। পুরাণ, মহাভারত, ভাগবতের বর্ণনা এবং জ্যোতিষশাস্ত্রের গণনা অনুসারে, কৃষ্ণ মথুরার যাদববংশের বৃষ্ণি গোত্রের অন্তর্ভুক্ত ছিলেন।

অরাজকতা, নিপীড়ন, অত্যাচার চরম পর্যায়ে পৌঁছালে অশুভ শক্তির বিনাশ করতে এবং দুষ্টের দমন করতে তিনি পৃথিবীতে জন্ম নেন শিষ্টের পালন আর সাধুজনদের রক্ষার জন্য।

তাঁর জন্ম তারিখ খ্রিষ্টপূর্ব ৩২২৮ সালের ১৮ জুলাই এবং তার মৃত্যুর দিন খ্রিষ্টপূর্ব ৩১০২ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি। তবে হিন্দুধর্মে গ্রেগরিয়ান তারিখ নয়, প্রাধান্য পায় গ্রহ, নক্ষত্রের গতিপথ।

শুভ জন্মাষ্টমীর তিথি সাধারণত সৌর ও চন্দ্র উভয়ের তথ্যের ওপর নির্ভর করে। এ বছর পঞ্চাঙ্গের পার্থক্যের কারণে কিছু জায়গায় জন্মাষ্টমী ১৮ আগস্ট এবং কিছু জায়গায় ১৯ আগস্ট জন্মাষ্টমী উৎসবের তিথি নির্ধারিত হয়েছে।

দিনটিতে সব হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে দিনটি উদ্‌যাপন করে। এই দিন ভক্তরা কৃষ্ণের প্রতি ভালোবাসা ব্যক্ত করার জন্য ধর্মীয় গান করেন। দরিদ্রদের দুঃখ অনুধাবন করতে এবং কৃষ্ণের সান্নিধ্য লাভের আশায় অভুক্ত থাকেন।

 

উৎসবকে কেন্দ্র করে মন্দির থেকে বিশেষ শোভাযাত্রা বের করা হয়। আয়োজন করা হয় আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও। বিটিভিতে প্রতিবছরই জন্মাষ্টমী উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করা হয়।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

 

সব খবর