ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১লা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি, রাত ৩:৫৮
বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম:
পঞ্চগড়ে করোতোয়া নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫০ জন বাংলাদেশ বিপুল পর্যটন সম্ভাবনাময় দেশ : প্রধানমন্ত্রীর দেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য অক্ষুণ্ন রেখে পর্যটন শিল্পে উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনা করুন : রাষ্ট্রপতি আওয়ামী লীগ রাজপথে নামলে অন্য কাউকে খুঁজে পাওয়া যাবে না : তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী করোনায় এক লাফে তিনগুণ মৃত্যু, শনাক্ত ৭১৮ মাদক সরবরাহে পুলিশ, সাংবাদিক ও বিত্তবানরা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছাতকে অবৈধ ডেন্টাল কেয়ারের ছড়াছড়ি রাশিয়ার স্কুলে বন্দুক হামলা, ৬ জন নিহত দেশের ২০ জেলায় ঝড়বৃষ্টির পূর্বাভাস, সতর্কসংকেত ভাষা সৈনিক, একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রবীণ সাংবদিক রণেশ মৈত্র আর নেই

পঞ্চগড়ে করোতোয়া নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫০ জন বাংলাদেশ বিপুল পর্যটন সম্ভাবনাময় দেশ : প্রধানমন্ত্রীর দেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য অক্ষুণ্ন রেখে পর্যটন শিল্পে উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনা করুন : রাষ্ট্রপতি আওয়ামী লীগ রাজপথে নামলে অন্য কাউকে খুঁজে পাওয়া যাবে না : তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী করোনায় এক লাফে তিনগুণ মৃত্যু, শনাক্ত ৭১৮ মাদক সরবরাহে পুলিশ, সাংবাদিক ও বিত্তবানরা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছাতকে অবৈধ ডেন্টাল কেয়ারের ছড়াছড়ি রাশিয়ার স্কুলে বন্দুক হামলা, ৬ জন নিহত দেশের ২০ জেলায় ঝড়বৃষ্টির পূর্বাভাস, সতর্কসংকেত ভাষা সৈনিক, একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রবীণ সাংবদিক রণেশ মৈত্র আর নেই
মঙ্গলবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ফুলবাড়ী ট্র্যাজেডি দিবস
উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা উত্তোলন প্রতিরোধের ১৬ বছর


আবারও রক্ত দেব, তারপরও উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা খনি প্রকল্প হতে দেব না–দিনাজপুর ফুলবাড়ী ট্র্যাজেডি দিবসে এমন প্রতিজ্ঞা স্থানীয়দের।

১৬ বছর আগে এই দিনে উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা খনি প্রকল্প বাতিল, জাতীয় সম্পদ রক্ষা এবং বিদেশি কোম্পানি এশিয়া এনার্জিকে প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে দিনাজপুরের ফুলবাড়ীর জনতা। বিক্ষুব্ধ জনতার ওপর পুলিশ ও তৎকালীন বিডিআরের (বিজিবি) গুলিবর্ষণে নিহত হন তিনজন, আহত হন শতাধিক মানুষ। আহতদের অনেকেই পঙ্গুত্ববরণ করেন। সেই থেকে দিনটি ফুলবাড়ী ট্র্যাজেডি দিবস হিসেবে পালন হয়ে আসছে। ফুলবাড়ীর মানুষ ছয় দফা বাস্তবায়ন চায়।

এদিকে তেল গ্যাস, খনিজসম্পদ রক্ষা জাতীয় কমিটির নেতাদের অভিযোগ, সমঝোতা চুক্তি বাস্তবায়ন না করে উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা উত্তোলনের চিন্তাভাবনা থেকে সরকার এখনো সরে আসেনি।

 

জানা যায়, ২০০৬ সালের ২৬ আগস্ট উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা খনি প্রকল্প বাতিল, জাতীয় সম্পদ রক্ষা এবং বিদেশি কোম্পানি এশিয়া এনার্জিকে প্রত্যাহারের দাবিতে সকাল থেকে দিনাজপুরের ফুলবাড়ীর ঢাকা মোড়ে হাজার হাজার মানুষ জমায়েত হতে থাকে। এরপর দুপুরের দিকে তেল, গ্যাস, খনিজসম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির নেতৃত্বে বিশাল প্রতিবাদ মিছিল নিমতলা মোড়ের দিকে এগিয়ে গেলে পুলিশ বাধা দেয়।

এ সময় মিছিলটি ব্যারিকেড ভেঙে সামনে গেলে পুলিশ ও তৎকালীন বিডিআর টিয়ারগ্যাস, রাবার বুলেট ও গুলি চালায়। এতে নিহত হন আল আমিন, সালেকীন ও তরিকুল। আহত হন শতাধিক আন্দোলনকারী। এখনও ফুলবাড়ীবাসী মনে করেন, প্রয়োজনে আবার আন্দোলন হবে, কিন্তু তারা উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা খনি প্রকল্প হতে দেবেন না।

ফুলবাড়ী পৌরসভার সাবেক মেয়র ও খনিবিরোধী আন্দোলনের নেতা মুরতুজা সরকার মানিক বলেন, যদি আবারও ষড়যন্ত্র করা হয়, ফুলবাড়িয়ার মানুষ ঐক্যবদ্ধভাবে জীবন দিয়ে হলেও ফুলবাড়ীকে রক্ষা করবে।

 

ফুলবাড়ী তেল, গ্যাস , বিদ্যুৎ, বন্দর ও খনিজসম্পদ জাতীয় রক্ষা কমিটির আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম জুয়েল বলেন, সেদিন সরকারের সঙ্গে যে সমঝোতা চুক্তি হয়েছিল, সেই চুক্তিতেই সরকার বলেছিল বাংলাদেশের কোথাও উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা খনি প্রকল্প হবে না।

ফুলবাড়ী তেল, গ্যাস , বিদ্যুৎ, বন্দর ও খনিজসম্পদ জাতীয় রক্ষা কমিটির নির্বাহী সদস্য মোশাররফ হোসেন নান্নু বলেন, ‘এখনো এশিয়া এনার্জি তাদের অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। এই এশিয়া এনার্জি আমাদের আন্দোলনকারী ১৯ জন নেতার নামে মিথ্যা মামলা করেছে, সে মামলা এখনো আদালতে চলমান। আমরা অবিলম্বে নিঃশর্তে সে মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।’

ফুলবাড়ীবাসী আজও প্রতিরোধের চেতনায় উদ্দীপ্ত হয়ে প্রতিবছরই পালন করছে ফুলবাড়ী ট্র্যাজেডি দিবস।

সব খবর