ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১০ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি, রাত ৮:১৫
বাংলা বাংলা English English

বৃহস্পতিবার, ৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘অপারেশন সুন্দরবন’ দেখে আইফোন জেতার সুযোগ


শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সারা দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের সর্ববৃহৎ ম্যানগ্রোভ বনভূমি সুন্দরবনে র‍্যাবের দুঃসাহসিক অভিযান নিয়ে নির্মিত পূর্ণদৈর্ঘ্য বাংলা সিনেমা ‘অপারেশন সুন্দরবন’। তবে এ সিনেমা দেখে দর্শকের ‘আইফোন-১৪’ জেতার কথা জানিয়েছেন সিনেমা সংশ্লিষ্টরা। মোট ২০ জন দর্শককে দেয়া হবে এ পুরুস্কার।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় বসুন্ধরা সিটিতে সিনেমাটির প্রিমিয়ারে এ ঘোষণা দেয়া হয়। সেই সঙ্গে জানানো হয়, ‘লটারির মাধ্যমে বিজয়ী ২০ ভাগ্যবানকে আইফোন দেয়া হবে। যারা সিনেমা হলে গিয়ে ‘অপারেশন সুন্দরবন’ দেখবেন, তারা টিকিটের পেছনে নাম ও মোবাইল নম্বর লিখে ড্রপবক্সে জমা দেবেন। ১ নভেম্বর সুন্দরবন দস্যুমুক্ত দিবস। ওইদিন লটারির মাধ্যমে ২০ জনকে আইফোন দেয়া হবে।’

২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে এক অনুষ্ঠানে ছবির টিজারে ‘সুন্দরবন আমাদের বহুবার বাঁচিয়েছে, এবার আমরা সুন্দরবনকে বাঁচাব’౼এমন সংলাপ দেখে অনেকেই চমকে যান। আর সেখান থেকেই সিনেমাটির জন্য দর্শকরা মুখিয়ে আছেন। দেশের প্রথম ওয়াইল্ড লাইফ অ্যাকশন থ্রিলার অপারেশন সুন্দরবন আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাবে।

 

উল্লেখ্য, মৎস ও বন সম্পদের প্রাচুর্যে ভরপুর সুন্দরবনে জলদস্যুদের উৎপাতের ইতিহাস দীর্ঘদিনের। প্রাচীনকাল থেকেই মগ, হার্মাদ ও ফিরিঙ্গিদের হাতে জীবন দিতে হয়েছে সেখানকার মাছ ও লবণ ব্যবসায়ীদের। কালের চক্রে জলদস্যুদের ভয়াবহতা আরও বেড়ে যায় সুন্দরবনে। একসময় জলদস্যুদের হাতে আধুনিক অস্ত্র এলে ভয়ংকর রূপ ধারণ করে দস্যুতা। সুন্দরবনের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনরক্ষা, মৎস্য ও বনজ সম্পদের সংরক্ষণ সর্বোপরি সুন্দরবনকে বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ২০১২ সালে র‌্যাব ফোর্সেসকে লিড এজেন্সি ও র‌্যাব মহাপরিচালককে প্রধান সমন্বয়কারী করে তৈরি হয় টাস্কফোর্স। র‌্যাবের ক্রমাগত সাঁড়াশি অভিযানে ২০১৬ সালের ৩১ মে থেকে ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর পর্যন্ত প্রায় দুই বছরে সুন্দরবনের ৩২টি বাহিনীর ৩২৮ জন জলদস্যু ৪৬২টি অস্ত্র ও বিপুল গোলাবারুদসহ আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হয়। র‌্যাবের মাধ্যমে সুন্দরবন জলদস্যুমুক্ত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুন্দরবনকে জলদস্যুমুক্ত হওয়ার ঐতিহাসিক ঘোষণা দেন। বর্তমানে সুন্দরবন দস্যুমুক্ত হওয়ায় এর প্রত্যক্ষ সুফল ভোগ করছেন তৎসংলগ্ন উপকূলবাসী। বিকশিত হচ্ছে সুন্দরবনকেন্দ্রিক পর্যটনশিল্প।

সব খবর