ঢাকা, বুধবার, ২৬শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২০শে জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি, রাত ৪:২৯
বাংলা বাংলা English English

অক্ষয়ের ‘ওএমজি টু’র মুক্তি নিয়ে জটিলতা


চলতি বছরের ১১ আগস্ট মুক্তির পাওয়ার কথা ছিল অক্ষয় কুমার অভিনীত সিনেমা ‘ওএমজি টু’। তবে সিনেমাটি মুক্তির কথা থাকলেও নানান জটিলতা তৈরি হয়েছে। ফলে পিছিয়ে যাচ্ছে অক্ষয়ের ‘ওএমজি টু’ সিনেমার মুক্তি।

শোনা যাচ্ছে, ভারতের সেন্ট্রাল বোর্ড অব ফিল্ম সার্টিফিকেশন তথা সেন্সর বোর্ডের কবলে পড়েছে সিনেমাটি। রীতিমতো ‘ওএমজি টু’র ওপর একগুচ্ছ বিধিনিষেধ আরোপ করেছে সেন্সর বোর্ড।

জানা গেছে, ২০১২ সালে মুক্তি পায় অক্ষয় অভিনীত সিনেমা ‘ওএমজি- ওহ মাই গড’। ধর্মবিশ্বাস আর অবিশ্বাসের দোলাচল ছিল সেই সিনেমার কেন্দ্রীয় বিষয়। সেই সঙ্গে ধর্মের নামে কুসংস্কার, অসাধু ব্যবসা চক্রের বিরুদ্ধেও কথা বলেছিল সিনেমাটি।

বক্স অফিসে ব্যাপক সাফল্য পায় ‘ওএমজি- ওহ মাই গড’। এবার সেই সিনেমারই দ্বিতীয় কিস্তি আসতে যাচ্ছে। কিন্তু আপত্তি জানিয়েছে সেন্সর বোর্ড। তাদের দাবি, সিনেমা থেকে বাদ দিতে হবে প্রায় ২০টি দৃশ্য।

কয়েকদিন আগেই খবর ছড়িয়ে পড়ে যে, ছবিতে নাকি প্রাধান্য পেতে চলেছে ‘এলজিবিটিকিউ’ গোষ্ঠীর মানুষদের কথা। মূলত এরপরেই সেন্সর বোর্ডের এমন কড়া নজরদারিতে পড়েছে সিনেমাটি। যদিও নির্মাতারা এই ধরনের খবরকে সম্পূর্ণ গুজব বলেই উড়িয়ে দিয়েছেন।

এর আগে গেল জুন মাসে মুক্তি পায় ‘আদিপুরুষ’। সেই সিনেমার একাধিক সংলাপ নিয়ে বিতর্ক ছড়ায় ভারতে। রীতিমতো ক্ষুব্ধ হন এক শ্রেণির দর্শক। এমনকি আঙুল ওঠে সেন্সর বোর্ডের দিকেও। তাই এবার ‘ওএমজি টু’র ক্ষেত্রে এই বাড়তি সতর্কতা বলেই ধারণা সিনেমা বিশেষজ্ঞদের।

প্রসঙ্গত, ‘ওএমজি টু’- তে মহাদেবের ভূমিকায় দেখা যাবে অক্ষয়কে। ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে সেই লুক। অভিনেতাকে মহাদেবের লুকে দেখে রীতিমতো উত্তেজিত তার অনুরাগীরা।

সূত্র : আনন্দবাজার

সব খবর