ঢাকা, বুধবার, ১৯শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি, সকাল ১০:০৩
বাংলা বাংলা English English

গৃহবধূর লাশ উদ্ধার, পরিবারের দাবি হত্যা


বরগুনার তালতলীতে রেশমা আক্তার (১৯) নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতের পরিবারের দাবি রেশমাকে পরিকল্পিত ভাবে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে তার স্বামী স্বজনরা।

রবিবার সকালে তালতলী থানা পুলিশ লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য বরগুনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।নিহত গৃহবধূ উপজেলার উত্তর গেন্ডামারা আনোয়ার হাওলাদরের পুত্র সুমন হোসেনের স্ত্রী।

ছোটবগী ইউনিয়নের ছিলবারতলী এলাকার বাসিন্দা রেসমার বাবা সেরাজ মোল্লা জানান,
সাত মাস পূর্বে পারিবারিকভাবে তাদের বিবাহ হয় বিয়ের কিছু দিনের মধ্যেই জামাই সুমন যৌতুকের জন্য মেয়েকে নির্যাতন করতে থাকে।কিছুদিন আগে
ব্যবসা করার জন্য রেশমার কাছে ৫লাখ টাকা যৌতুক দাবী করে জামাই সুমন, এরপর রেশমা তার মায়ের কাছে টাকার কথা বলে। শনিবার রাত ৯ টার দিকে হঠাৎ করে জামাই সুমন ও তার এক বন্ধু আল আমিন আমার বাড়ি এসে মেয়েকে তাদের বাড়ি নিয়ে যায়। রাত ১০ টার দিকে খবর আসে আমার মেয়ে অসুস্থ হয়ে পরছে। সংবাদ পেয়েই তারা রেশমার শ্বশুর বাড়িতে গিয়ে দেখতে পান তার মেয়েকে মাটিতে শুইয়ে রাখা হয়েছে। এরপর ডাক্তার বলে যে আমার মেয়ে আর নেই। পরে রাতে পুলিশ ঘটনাস্থল লাশটি উদ্ধার করে তালতলী থানায় নিয়ে আসে তিনি আরও জানান, সুমন ও তার আত্মীয় স্বজন তার মেয়েকে প্রতিনিয়তই মারধর করতো। এ ব্যাপারে কথা বলতে গেলে সুমন তাদের ওপরও চড়াও হয়েছে।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম খান জানান, লাশ ময়না তদন্তের জন্য বরগুনা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে এরপর বিস্তারিত বলা যাবে। তবে বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখছি আমরা।

সব খবর